Friday , 14 August 2020

সংবাদ শিরোনাম
Home » জাতীয় » বড়লেখার প্রত্যন্ত এলাকায় করোনা সংক্রমণ বাড়ছে : সচেতনতার তীব্র অভাব

বড়লেখার প্রত্যন্ত এলাকায় করোনা সংক্রমণ বাড়ছে : সচেতনতার তীব্র অভাব

একদিনে সর্বোচ্চ আকা্ন্তের রেকর্ড, ১১ জন আক্রান্ত, মোট আক্রান্ত ৩৮

June 23, 2020 3:47 pm Leave a comment A+ / A- সংবাদটি ৬১৮ বার পাঠ করা হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক :: মৌলভীবাজারের বড়লেখা পৌর শহরসহ উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকায় আশংকাজনকহারে বাড়ছে করোনা রোগীর সংখ্যা। পৌর শহর থেকে শুরু করে উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের হাট-বাজারগুলোতে কিংবা কোথায়ও মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি। সচেতনতার তীব্র অভাবের কারণে উপজেলায় উপসর্গ ও উপসর্গবিহীন করোনা আক্রান্তদের সংখ্যা বাড়ছে বলে মনে করা হচ্ছে।

ডাক্তার-পুলিশ, একই পরিবারের ৩জনসহ ১১ জনের  করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে, যা উপজেলায় একদিনে সর্বোচ্চসংখ্যক শনাক্তের রেকর্ড। গত সোমবার (২২ জুন) রাতে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ এই তথ্য নিশ্চিত করে। আক্রান্তদের মধ্যে আক্রান্ত যুবকের বাবা-মাসহ ৩জন, হাসপাতালের ১ চিকিৎসক ও থানার ১ পুলিশ কর্মকর্তা রয়েছেন। এ নিয়ে উপজেলায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৮ জনে। এর মধ্যে ৮জন সুস্থ হয়েছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্র জানায়, করোনার বিভিন্ন উপসর্গ থাকায় গত ২০ জুন ৮জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য ল্যাবে পাঠানো হয়। গত সোমবার দুপুরে তাদের নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদন পজিটিভ আসে। নতুন শনাক্ত হওয়া এই ১১ জনের মধ্যে হাসপাতালের এক ডাক্তার ও তার স্ত্রী, বড়লেখা থানার ১জন এসআই, পৌরসভার হাটবন্দ এলাকার একই পরিবারের ৩জন, দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউনিয়নের ১জন, তালিমপুর ইউনিয়নের ১জন এবং গল্লাসাঙ্গন গ্রামের ৩জন রয়েছেন। এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: রত্নদ্বীপ বিশ্বাস জা্নান, আক্রান্তদের মাঝে করোনার উপসর্গ থাকায় গত ২০ জুন তাদের নমুনা পরীক্ষার জন্য ল্যাবে পাঠানো হয়েছিলো। সোমবার তাদের রিপোর্ট আমরা হাতে পাই। আক্রান্তরা তাদের বাসা-বাড়িতে আছেন। কারও কারও জ্বর কমেছে। তবে কাশি রয়েছে। তাদের বাসা-বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে।

এদিকে সোমবার রাতেই ৮জনের পরে আরও ৩জনের তথ্য পাওয়া যায়। করোনায় আক্রান্ত এক যুবকের বাবা-মা এবং ভাবীর শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। তাদের বয়স ৩৩ থেকে ৬৫ বছরের মধ্যে। সোমবার রাতে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ এই তথ্য জানায়। তাদের বাড়ি উপজেলার নিজবাহাদুরপুর ইউপি’র গল্লাসাঙ্গন গ্রামে। ধারণা করা হচ্ছে, ওই যুবকের মাধ্যমে তার বাবা-মা ও ভাবী করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। হাসপাতাল সূত্র জানায় , একই পরিবারের ৩জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর আগে গত ১১ জুন ওই পরিবারের এক যুবকের করোনা শনাক্ত হয়েছিলো। এরপর গত ১১ জুন ওই যুবকের পরিবারের সবার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য ল্যাবে পাঠানো হয়। সোমবার তাদের নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদন পাওয়া যায়। এতে ওই যুবকের বাবা-মা ও ভাবীর করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের বাড়ি আগে থেকেই লকডাউন রয়েছে। অবশ্য তারা সুস্থ রয়েছেন।

অপরদিকে এর আগে গত ২০ জুন বিকেলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ১জন ফার্মাসিস্ট (৩২) এবং একটি ওষুধ কোম্পানীর ১জন বিক্রয় প্রতিনিধির (৩২) করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। তাদের একজনের বাড়ি পৌরসভার হাটবন্দ এলাকায় এবং অপরজনের বাড়ি পাখিয়ালা এলাকায়। তাদের দু’জনের মধ্যে করোনার উপসর্গ জ্বর-কাশি ছিলো। গত ১৭ জুন তাদের নমুনা সংগ্রহ পরীক্ষার জন্য ল্যাবে পাঠানো হয়েছিলো। তারা দু’জনেই সুস্থ আছেন। তাদের বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে।

এদিকে এর আগে গত ১৭ জুন বিকেলে একই পরিবারের দুই বোনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। তাদের একজনের বয়স ২৫ এবং অন্যজনের বয়স ২৭ বছর। তাদের বাড়ি পৌরসভার বারইগ্রাম এলাকায়। করোনার উপসর্গ থাকায় গত ৭ জুন তাদের নমুনা সংগ্রহ করে ল্যাবে পাঠানো হয়েছিলো। তাদের বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। এছাড়া করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ব্যবসায়ী পৌর শহরের হাটবন্দ এলাকার বাসিন্দা অনুরঞ্জন দেবনাথের করোনা নেগেটিভ এসেছে।

বড়লেখার প্রত্যন্ত এলাকায় করোনা সংক্রমণ বাড়ছে : সচেতনতার তীব্র অভাব Reviewed by on . নিজস্ব প্রতিবেদক :: মৌলভীবাজারের বড়লেখা পৌর শহরসহ উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকায় আশংকাজনকহারে বাড়ছে করোনা রোগীর সংখ্যা। পৌর শহর থেকে শুরু করে উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের হা নিজস্ব প্রতিবেদক :: মৌলভীবাজারের বড়লেখা পৌর শহরসহ উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকায় আশংকাজনকহারে বাড়ছে করোনা রোগীর সংখ্যা। পৌর শহর থেকে শুরু করে উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের হা Rating: 0
scroll to top

Developed by: