Friday , 14 August 2020

সংবাদ শিরোনাম
Home » কলাম » নেতিবাচক না হয়ে আসুন ভালো কাজে উৎসাহ দিই

নেতিবাচক না হয়ে আসুন ভালো কাজে উৎসাহ দিই

May 7, 2020 1:44 am Leave a comment A+ / A- সংবাদটি ৪১১ বার পাঠ করা হয়েছে

তোফায়েল আহমদ তুহেল : আসুন যেখানে শেষ, সেখান থেকে আমরা উদ্যোগ গ্রহণ করি। সমালোচনা নয়, হোক লোক দেখানো বা গোপনে অসহায় মানুষের কল্যাণে হাল ধরুন। যার সামর্থ্য যতোটুকু সে ততোটুকু সমাজের কল্যাণের জন্য কাজ করবে। কেননা এই দেশে নবাব সিরাজউদ্দোলার মতো পরিবারের লোক সবাই নয় যে, সারা বছর ত্রাণ বিতরণ করবে।

নৈতিক জ্ঞান দিয়ে সমালোচনা করুন তাদের বিরুদ্ধে, যারা অসহায় মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। এমনও হৃদয়বান মানুষ আছে যারা সারা বছর অসহায় মানুষের কল্যাণে কাজ করতে চায়; দুঃখজনক হলেও সত্য-তাদের আর্থিক সামর্থ্য নেই।
নির্লজ্জের মতো অন্যের জন্য ভিক্ষা করে, অনেক দাতা বিরক্ত বোধও করেন এমন কাজে। অনেকেই যোগাযোগ কমিয়ে দেন অনুদানের জন্য টাকা চাইলে। যারা সমাজের জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করে তারা কতোটুকু কষ্ট করে, তা শুধু উদ্যোগ গ্রহণকারীরাই জানে। আমরা যে কাউকে নিয়ে সমালোচনা করতে দ্বিধা করি না! আমাদের বোঝা উচিত, লোক দেখানো হোক বা হৃদয় থেকে হোক- সেটাতো সমাজের কল্যাণের জন্যই হচ্ছে। তার কর্মের ফল প্রদান করবেন আল্লাহ রাব্বুল আলামীন। আমরা কেনো সমালোচনা করবো তাদের নিয়ে। আমাদের উচিত তাদের উৎসাহিত করা। ইসলামিক দৃষ্টিকোণ থেকেও ভালো কাজের গুরুত্ব রয়েছে। কোরআন ও হাদিসের আলোকে জীবন পরিচলনা করার সঙ্গে সঙ্গে এ গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বের ব্যাপারে সজাগ হওয়া অপরিহার্য। কল্যাণের অনেক দিক রয়েছে, যেমন- অমুসলিমদের ঈমানের দাওয়াত, মুসলমানকে ইবাদত ও সৎ আমলে উৎসাহ, আত্মীয়-স্বজন, বন্ধুবান্ধব, দরিদ্র-অসহায় ব্যক্তিদের সঙ্গে উৎকৃষ্ট আচরণের উপদেশ, কেউ বালা-মুসিবতে পতিত হলে তাদের সাহায্য ও সহানুভূতি জানানো ইত্যাদি। এগুলো আমলে জিন্দেগির অংশ বানানো সবার ওপর কর্তব্য। একজন প্রকৃত মুসলমানের দায়িত্ব শুধু আপন ভাইয়ের ওপর নয়, বরং পুরো পাড়া-প্রতিবেশীকে ভালো কাজে উদ্বুদ্ধ করা ঈমানি দায়িত্ব।

জানেন! যারা সমাজের জন্য চিন্তা করে তারা বিতরণ নিয়ে সমালোচনা করে না। কিন্তু যারা সমাজ নিয়ে চিন্তাই করে না-তারা সমাজের কর্ম নিয়ে বেশিরভাগ নেতিবাচক মন্তব্য করে। সমালোচনাকারী যারা সমাজের কল্যাণের জন্য নিজেও কিছু করবে না; আবার অন্যের ভালো কাজ দেখে হিংসা করবে। এমনকি তাকে কিভাবে টেনে নীচে নামানো যায়, সেই চিন্তায় অস্থির হয়ে পড়ে। মন্তব্যকারীদের কাছে অনুরোধ করি, যারা মন্তব্য করেন আপানারা গোপনেও পারলে অসম্পূর্ণ কাজের জন্য হাল ধরুন, দয়া করে। দেশের এমন কঠিন সময়ে আপনার উৎসাহটুকুই অনেকের প্রাণের সঞ্চার হবে।

যেখানে দেখবেন শেষ, সেখান থেকে আপনি নিজেই উদ্যোগ গ্রহণ করুন। ইনশাআল্লাহ অচিরেই আল্লাহ এর সাহায্য আসবে আপনার জন্য। তাই আসুন-ভেদাভেদ, বিবেদ ভুলে হিংসা কিংবা ভালো কাজের অন্তরায় না হয়ে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করি মানবতার কল্যাণে। তবেই একটি সার্থক জীবনের পাশাপাশি অগণিত কল্যাণ বয়ে আনবে আপনার জন্য।
লেখক : স্বেচ্ছাসেবী সংগঠক ও শিক্ষার্থী।

নেতিবাচক না হয়ে আসুন ভালো কাজে উৎসাহ দিই Reviewed by on . তোফায়েল আহমদ তুহেল : আসুন যেখানে শেষ, সেখান থেকে আমরা উদ্যোগ গ্রহণ করি। সমালোচনা নয়, হোক লোক দেখানো বা গোপনে অসহায় মানুষের কল্যাণে হাল ধরুন। যার সামর্থ্য যতোটুক তোফায়েল আহমদ তুহেল : আসুন যেখানে শেষ, সেখান থেকে আমরা উদ্যোগ গ্রহণ করি। সমালোচনা নয়, হোক লোক দেখানো বা গোপনে অসহায় মানুষের কল্যাণে হাল ধরুন। যার সামর্থ্য যতোটুক Rating: 0
scroll to top

Developed by: